মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

মিশন ও ভিশন

০৯ (নয়) মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের পর স্বাধীন বাংলাদেশকে জাতির পিতার স্বপ্নের ‘‘সোনার বাংলা’’ গড়ার লক্ষ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উদ্যোগ-ডিজিটাল বাংলাদেশ। সে লক্ষ্যে রূপকল্প ২০২১ প্রণয়ন করা হয়েছে। রূপকল্প ২০২১ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বাংলাদেশকে ডিজিটালে রুপান্তর করা হচ্ছে। ডিজিটাল শব্দটি শুনে সবাই হয়তোবা ভেবেছিলেন দেশ আবার ডিজিটাল হয় কি করে। নিন্দুকেরা ক্রিটি সাইজও করেছেন। ডিজিটাল শব্দটি ব্যবহৃত হয় মূলত: ইলেক্ট্রনিকস ও ইলেকট্রিক সামগ্রীর ক্ষেত্রে। সরকারের বিভিন্ন  অর্গান/সেক্টরকে দ্রম্নততম সময়ে সর্বোচ্চ সেবা জনগনের দোড় গোড়ায় পৌছে দেয়ার জন্য, দেশকে উন্নতির শিখরে পৌছানোর জন্য যে সকল পদ্ধতি অবলম্বন করা হচ্ছে বা হবে ডিজিটাল বলতে তাকে বুঝানো হয়েছে। বিশ্বায়নের এ যুগে এক্ষেত্রে আইসিটি সেক্টর অগ্রনী ভূমিকা পালন করছে। সরকারের প্রায় সকল সেক্টরই উদ্ভাবনীমূলক কাজ করে দ্রুততম সময়ে সর্বোচ্চ সেবা দিতে আইসিটি এর উপর নির্ভর করছে।

           শিক্ষাই জাতির মেরুদন্ড। যে জাতি যত শিক্ষিত সে জাতি ততো উন্নত। শিক্ষিত জাতি গঠনে সর্বাগ্রে প্রয়োজন জাতিকে সাক্ষরজ্ঞান করে তোলা। বিগত ২০১৩ সালের ব্যুরো অব ষ্ট্যাষ্টিক্স এর প্রতিবেদন অনুযায়ী সাক্ষরতার  হার ৬২%; ইউসেস্কোর ২০১৫ এর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে বাংলাদেশের সাক্ষরতার হার ৬১.৫%। বর্তমানে বলা হচ্ছে সাক্ষরতার হার ৭১%; শিক্ষিতের হার তার চেয়েও কম। অর্থাৎ ২৯ ভাগ জনগনই সম্পূর্ন নিরক্ষর। সরকারের সকল অর্গান, সেক্টর রূপকল্প-২০২১ কে সামনে রেখে উন্নয়নের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রেখেছে। অনেক ক্ষেত্রেই তাদের সেবা জনগনের দোড় গোড়ায় অনেকাংশে পৌছে দিয়েছে। প্রায় সকল সেবাই আইসিটি নির্ভর। আইসিটি নির্ভর সেবা গ্রহনে সক্ষম শুধু শিক্ষিত জনগোষ্ঠী। সে সেবা গ্রহণ করার ক্ষমতা ২৯ ভাগ জনগনেরই নেই। যারা সামান্য শিক্ষিত তাদেরকেও সেবা পাবার জন্য হয়তো জেলা প্রশাসন কিংবা উপজেলা প্রশাসনের কাছে দৌড়ঝাপ করতে হচ্ছে না। কিন্তু সামান্য একটি চাকুরীর আবেদন করতেও ইউডিসি কিংবা দুরবর্তী কোন স্থানের সাইবার ক্যাফে দৌড় ঝাপ করতে হচ্ছে। তাদেরকে সেবা করতে গিয়ে তাদের ভোগান্তি বাড়ানো হচ্ছে কিনা সেটাও ভাবার বিষয়। এ মূহুর্তে যা দরকার সেটা হচ্ছে দ্রম্নততম সময়ে এ নিরক্ষর জনগোষ্ঠীকে সাক্ষর করে তোলা। সরকারের নিরলস পরিশ্রমকে বাস্তবে রূপ দিতে হলে সাক্ষরতার হার বৃদ্ধির বিকল্প নেই।

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter